সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

rsz_gerbera_farben_1.jpg

পরিচর্যা এবার বারান্দায় ফুটবে জারবেরা

দো-আঁশ বা বেলে দো-আঁশ মাটি জারবেরা চাষের জন্য উপযুক্ত। জারবেরা গাছের জন্য পলিথিনের শেড তৈরি করে নিতে পারলে ভাল হয়।

চোখ জুড়ানো বাহারি রঙের কয়েকটা জারবেরার গাছ বারান্দায় বা ছাদে রাখলে বাসার সৌন্দর্য অসম্ভবরকম বৃদ্ধি পায়। ম্যাজেন্ডা, লাল, সাদা, হলুদ, বেগুনী, গোলাপি, কমলাসহ বেশ কয়েকটি রঙের জারবেরা পাওয়া যায়। সারা বছরই এই জারবেরা ফুল ফোটে। একটি গাছ থেকে বছরে ৫০ থেকে ৬০টি ফুল পাওয়া যায়।

দো-আঁশ বা বেলে দো-আঁশ মাটি জারবেরা চাষের জন্য উপযুক্ত। জারবেরা গাছের জন্য পলিথিনের শেড তৈরি করে নিতে পারলে ভাল হয়। সাধারণত জারবেরা ফুল ফোটার পরও ১০-১২ দিন সতেজ থাকে। তবে, জারবেরা গাছগুলোকে অন্য গাছের ছায়ায় রাখা যেতে পারে। তাতে হালকা রোদও পাবে আবার হালকা ছায়াও পাবে। টবে যাতে বৃষ্টির পানি জমে না থাকে তা অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে।

কিছু বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে l যেমন:
  • টবকে হালকা রোদে রাখতে হবে।
  • সাজানোর জন্য ফুল তোলার পর যখন ফুল মরে যেতে শুরু করলে ফুলের ষ্টিক একদম গোড়ায় কেটে ফেলতে হবে।
  • টবের মাটি যাতে বেশি শুকিয়ে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।
  • কোনক্রমেই গাছের গোড়ায় পানি জমতে দেওয়া যাবে না।
  • জারবেরা গাছের পাতা মরে গেলে মরা পাতা কাঁচি দিয়ে কেটে ফেলতে হবে ।
  • ১৫-২০ দিন পরপর সরিষার খৈল পচা পানি পাতলা করে গাছের গোড়ায় দিতে হবে।
  • টবের মাটি মাঝে মাঝে খুচিয়ে দিতে হবে।
  • ফুল তোলার সময় বোটা একটু লম্বা রাখতে হবে এবং ফুল তৃযকভাবে কাটতে হবে। 
তবে আরকি। জেনে নিলেন তো জারবেরা গাছের পরিচর্যার নিয়ম। এবার তবে বারান্দায়ই করে ফেলুন জারবেরা বাগান।

এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

ফুল, জার্বেরা, পরিচর্যা, চাষ, টব